‘র‍্যাম’ নিয়ে গ্রাহকের সাথে টেকনোর প্রতারণা!

 ভার্চুয়াল র‍্যাম ব্যবহারের নামে গ্রাহককে ঠকাচ্ছে হংকংভিত্তিক ট্রানশান হোল্ডিংস-এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা টেকনো। ভার্চুয়াল র‍্যাম বাড়ানোর ফলে বেটার গেমিং পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে বলে প্রচারণা চালিয়ে আসছে টেকনো। যেটা আসলে এক ধরনের প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই নয়। ক্রেতার কাছ থেকে ফোনের দামও বেশি নেওয়া হচ্ছে।

জানা যায়, প্রতিষ্ঠানটি তাদের টেকনো স্পার্ক ৮ প্রো এবং টেকনো স্পার্ক ৮ সি মডেলের ফোনে ভার্চুয়াল র‍্যামের সুবিধা দিচ্ছে। যেমন- টেকনো স্পার্ক ৮ প্রোতে ৩ জিবি ভার্চুয়াল র‍্যামের সুবিধার কথা বলা হচ্ছে। যেখানে ফোনটির সাথে রয়েছে ৬ জিবি র‌্যাম। এই ভার্চুয়াল র‌্যাম ব্যবহার করায় ফোনটি তুলনামূলক বেশি দামে বাংলাদেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে।স্মার্টফোন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভার্চুয়াল র‍্যাম নতুন কোনো প্রযুক্তি নয়, স্মার্টফোন এবং কম্পিউটারের অনেক পুরাতন একটি ফিচার। স্টোরেজ যত বেশি ফাস্টই হোক না কেন তা কখনোই ফিজিক্যাল র‍্যামের মতো পারফমেন্স দিতে পারবে না। ফোনের ভার্চুয়াল র‍্যাম কখনোই ফিজিক্যাল র‍্যামের মতো ব্যবহার করতে পারবেন না। ফোনের ভার্চুয়াল র‍্যাম ব্যবহারে অনেক সীমাবদ্ধতা আছে।

ভার্চুয়াল র‍্যামের ক্ষতিকর দিকও আছে। কেননা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের যেই স্টোরেজ আছে সেগুলোর লিমিটেড লাইফস্প্যান থাকে। অর্থাৎ একটা নির্দিষ্ট রাইট/রিরাইট করার হার থাকে। ফলে দেখা গেছে, এক্সটেন্ডেড ভার্চুয়াল র‍্যাম কাজে না আসলেও বেশি ব্যবহারের কারণে অতিরিক্ত সোয়াপিং এবং রাইট/রিরাইটের মাধ্যমে ফোনের স্টোরেজ লাইফস্প্যান কমিয়ে দেয়।

টেকনো স্পার্ক ৮সি ফোন কিনে প্রতারিত হয়েছেন এমন অভিযোগ ঢাকার কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থী নকিবের। তিনি বলেন, আমি টেকনোর স্পার্ক ৮সি ফোনটি কিছুদিন আগে ক্রয় করি। মূলত গেম খেলার জন্য এই ফোনটি ক্রয় করি। তারা জানায় এই ফোনে ৪ গিগাবাইট র‌্যাম রয়েছে, যা এক্সটেন্ডেড করে ৩ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। কিন্তু গেম খেলতে গিয়ে আমি কোনো সুবিধা পাচ্ছি না। ফোনের এক্সটেন্ডেড ৩ গিগাবাইট র‌্যামের কোনো উপকারই দেখছি না।

Leave a Comment