মসজিদের ইমাম যখন চোর

জাহিদ মাহমুদ, মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ নিজে একটি জামে মসজিদের পেশ ইমাম। তবে, তার নেশা অন্য মসজিদের দান বাকসের টাকা চুরি। শুধু টাকা নয়, মসজিদের অন্যান্য জিনিসপত্রও চুরি করা তার পেশা। এ যেনো চোরে না শোনে ধর্মের কাহিনী। গাংনী উপজেলার চরগোয়ালগ্রাম গ্রামের জামে মসজিদের তালা ভেঙ্গে টাকা চুরির সময় ধরা পড়লেন কাজী আল হেলাল (৪৫) নামের এক চোর।

কাজী আল হেলাল (৪৫) চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার ভাঙবাড়িয়া গ্রামের মৃত ডাক্তার কাজী সদর উদ্দীনের ছেলে। সে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আবুরী জামে মসজিদের পেশ ইমাম হিসেবে কর্মরত।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টার সময় গাংনী উপজেলার মটমুড়া ইউনিয়নের গোয়ালগ্রামের একটি জামে মসজিদের দান বাকসের তালা ভেঙ্গে টাকা পয়সা চুরি করেন। এসময় মসজিদ কমিটির সভাপতি মসজিদ পরিষ্কার করতে গিয়ে তাকে টাকা চুরি করা অবস্থায় আটক করেন।

জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি মহসিন আলী জানান, গতকাল রাতে ঝড় বৃষ্টির কারনে পাতা ও ধুলো পড়ে নোংরা হয়ে ছিলো মসজিদটি। নোংরা পরিস্কার করার জন্য মসজিদে যায়। মসজিদের প্রধান ফটক সামান্য খোলা দেখতে পাই প্রথমে। পরে ভিতরে গিয়ে দেখি চোর দান বাকসের তালা ভেঙ্গে টাকা পয়সা ব্যাগে করে নিয়ে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। হৈ চৈ শুরু করলে আশে পাশের লোকজন এসে তাকে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করি।

তিনি বলেন, এর আগেও মুসল্লি সেজে দু দফা একই মসজিদের দান বাকসের টাকা চুরি করেছে সে। এছাড়া গাংনীর আরেকটি মসজিদের মটর চুরির করতে গিয়ে সে ধরা পড়ে উত্তম মাধ্যম খেয়েছে। তার নামে নিজ এলাকাতেও একাধিক চুরির অভিযোগ রয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। আটক কাজী আল হেলালের কাছে তালা ভাঙ্গার কাজে ব্যবহৃত একটি বিশেষ ধরনের স্কৃ ড্রাইভার, সাইকেলের স্পোক এবং একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Comment