বোরকা পরো, চলো নামাজ পড়ি : স্ত্রী গৌরীকে শাহরুখ

7 / 100

বলিউডের আইকনিক জুটি বলা হয় সুপারস্টার শাহরুখ খান ও ফ্যাশন ডিজাইনার গৌরী খান দম্পতিকে। তাঁদের পরিচয় বলিউডে শাহরুখের অভিষেকেরও আগে, ১৯৮৪ সালে। ১৯৯১ সালে বিয়ে করেন তাঁরা।শাহরুখ-গৌরীর বিয়ের তিন দশক হতে চলল, তবে এখনো তাঁদের সম্পর্ক ভীষণ শক্তিশালী। তবে শুরুর পথ এতটা মসৃণ ছিল না।

দুজন ভিন্ন ধর্মের অনুসারী হওয়ায় গৌরীর পরিবারকে এই বিয়েতে রাজি করাতে হয়েছিল। ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসের প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।অনেক আগে ফরিদা জালালের টক শোতে পাঞ্জাবি পরিবারের মেয়ে গৌরীকে বোরকা পরতে বলা ও নাম পরিবর্তন করে আয়েশা রাখতে বলা নিয়ে বেশ চমকপ্রদ ঘটনা প্রকাশ করেন শাহরুখ খান।

ঘটনাটি ঘটে তাঁদের বিবাহোত্তর সংবর্ধনায়, যেখানে গৌরীর আত্মীয়রা বরের ধর্ম নিয়ে কানাঘুষা করছিলেন। ওই ঘটনা উল্লেখ করে বলিউড বাদশাহ বলেন, ‘আমার মনে আছে, যখন তাঁদের পুরো পরিবার, আদি ধ্যানধারণার মানুষেরা… আমি তাঁদের সবাইকে সম্মান করি ও তাঁদের বিশ্বাসকে শ্রদ্ধা করি। কিন্তু ওই পুরোনো ধাঁচের রিসেপশনে সবাই বসেছিল। ১টা ১৫ মিনিটে আমি যখন সেখানে যাই, সবাই কানাঘুষা করছিল—হুম, ও একজন মুসলিম ছেলে। হুম… সে কি মেয়ের নাম বদলে দেবে? গৌরী কি মুসলমান হয়ে যাবে?’

শাহরুখের রসাল কথার সঙ্গে অনেকেই পরিচিত। সেদিনও শাহরুখ কিছুটা মজা করার সিদ্ধান্ত নেন। ‘ঠিক আছে গৌরী, বোরকা পরে নাও এবং চলো এখনই নামাজ পড়ি,’ বলেছিলেন শাহরুখ।‘আমি গৌরীর ধর্ম পরিবর্তন করিয়েছি, এমনটি ভেবে পুরো পরিবার আমাদের দিকে বিস্ফোরক দৃষ্টিতে তাকাচ্ছিল। তখন আমি তাঁদের বললাম, সে এখন থেকে নিয়মিত বোরকা পরবে, কখনো ঘর থেকে বের হবে না এবং ওর নাম হবে আয়েশা।’

যদিও সবগুলো কথাই মজা করে বলেছিলেন শাহরুখ, তবে এর পরেই তিনি ধর্ম সম্পর্কে বেশ গভীর চিন্তাধারা প্রকাশ করেন। ‘আমি অনেক মজা করেছি, তবে এর মধ্যে শিক্ষাটি হচ্ছে—প্রত্যেকের অবশ্যই ধর্মকে সম্মান করা উচিত, তবে তা কখনোই ভালোবাসার মধ্যে টেনে আনা উচিত নয়। যা হোক, বিয়েটা দারুণ ছিল। আমাদের সম্পর্ক আরো মজবুত হচ্ছে,’ বলেছিলেন শাহরুখ।শাহরুখ-গৌরী দম্পতির রয়েছে তিন সন্তান—আরিয়ান, সুহানা ও আব্রাম খান। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সুহানা খানের লাখো ভক্ত তৈরি হয়েছে। বি-টাউনের অনুরাগীরা বলিউডে তাঁর অভিষেকের অপেক্ষায় রয়েছেন।

Leave a Comment