বুথ ভেঙে টাকা লুটের চেষ্টা; যুবক বলছেন ঋণগ্রস্ত, পরিবারের দাবি মানসিক রোগী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাংকের এটিএম বুথ ভেঙে টাকা লুটের চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আশরাফ ইসলাম নামের এক যুবককে আটক করে পুলিশে দেয় স্থানীয়রা। এ সময় বুথ থেকে ব্যাগ, ছুরি, শাবল উদ্ধার করা হয়। আটক আশরাফ পৌর এলাকার কলেজপাড়ার বাসিন্দা আবুল ফয়েজ মিয়ার ছেলে। গ্রামের বাড়ি জেলার কসবা উপজেলার খাড়েরা ইউনিয়নের দেলি গ্রামে। তিনি পরিবারসহ দীর্ঘদিন ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পূর্ব নয়নপুর এলাকায় বসবাস করছেন। যুবকের দাবি, ঋণ পরিশোধের জন্য তিনি এ অপকর্মের আশ্রয় নিয়েছিলেন। তবে পরিবার বলছে, তিনি মানসিক রোগী। তাঁর চিকিৎসা চলছে।

ব্যাংক এশিয়া সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে হাসপাতাল রোডে তাদের একটি এটিএম বুথে ওই যুবক প্রবেশ করে প্রথমে এক নিরাপত্তাকর্মীকে বেঁধে ফেলার চেষ্টা করেন। তখন বাইরে থেকে অন্য এক নিরাপত্তাকর্মী বুথের ভেতর গিয়ে বিষয়টি বুঝতে পেরে চিৎকার শুরু করেন। এ অবস্থায় আশপাশের দোকানদার ও পথচারীরা এগিয়ে এসে যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় আটক আশরাফ পুলিশকে জানায়, তাঁর দুই লাখ টাকা ঋণ আছে।

সেই টাকা পরিশোধ করতে পারছিলেন না। তাঁর বাবার নয়নপুরে তিনতলা বাড়ি এবং গ্রামে অনেক জমিজমা থাকলেও টাকা দিচ্ছিলেন না। ঋণ পরিশোধের জন্য তিনি এ পথ বেছে নিয়েছেন। এ জন্য তিনি ১৪০ টাকা দিয়ে ছুরি কেনেন। ধারণা ছিল, ছুরি দেখালে নিরাপত্তাকর্মী তাঁকে বুথের চাবি দিয়ে দেবেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সোহরাব আল-হোসাইন জানান, পরিবারের সদস্যরা দাবি করেছেন আশরাফ মানসিক রোগী। তাঁরা থানায় এসে ব্যবস্থাপত্র (প্রেসক্রিপশন) দেখিয়ে গেছেন। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

Leave a Comment