পুরো রমজান মাসের খাবার পাঠালেন পুলিশ কর্মকর্তা, আবেগে আপ্লুত বৃদ্ধা

 

৮২ বছরের বৃদ্ধা মহিতন বিবির বাড়ি রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার গজঘণ্টা ইউনিয়নে। স্বামী হারানোর পর কয়েক বছর আগে তিন ছেলে ও এক মেয়ের মাঝে দুই ছেলে কুমিল্লা থেকে কাজ করে ফেরার সময় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়। এরপর ছোট ছেলে ও মেয়ে বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িতে থাকে। কিন্তু দরিদ্র সংসারে নিজেদের বোঝা টানতে গিয়ে মহিতন বিবির খোঁজ রাখেননি তারা।

এদিকে নিঃসঙ্গ বৃদ্ধা মহিতন আশপাশ থেকে খাবার খুজে খেতেন, না পেলে অর্ধাহারে অনাহারে দিন কাটাতেন। আর থাকার জায়গা বলতে অন্যের জায়গায় একটা ছাপড়া ঘর ছিল তার। বৃষ্টি আর ঝড় এলে ভাঙ্গা চালা দিয়ে পানি পড়তো ঘরের ভিতর। শেষ জীবনেও কষ্টের শেষ ছিল না তার। গতবছর বিষয়টি জানতে পেরে তৎকালীন রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার সেই বৃদ্ধা মহিতন বিবির পাশে দাঁড়ান।

এসপির নির্দেশে ও সহায়তায় মহিতনের ঘর হয় মেয়ের বাড়িতে। সেখানে সকলের সহযোগিতায় একটি টিনের ঘর করে মেয়ের সাথে থাকেন। তবে অভাব যেন তার এখনও নিত্য সঙ্গী। থাকার ঘর মিললেও দরিদ্র মেয়ের বাড়িতে এখনও ঠিকমতো খাবার মিলে না তার।

এদিকে চাকুরী সূত্রে রংপুরের তৎকালীন সেই পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকারও কয়েক মাস আগে বদলী হয়ে গেছেন। বর্তমানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও জোনের উপকমিশনার (ডিসি) হিসেবে কর্মরত রয়েছেন তিনি।

তবে সেই বৃদ্ধা মহিতন বিবিকে ভূলেননি পুলিশের এই কর্তা ব্যক্তি। পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে ঢাকা থেকেই এই বৃদ্ধার জন্য পুরো মাসের খাবার পাঠিয়েছেন তিনি। গতকাল শুক্রবার ১ এপ্রিল গঙ্গাচড়া উপজেলার কৈপাড়া গ্রামে সেই বৃদ্ধা মহিতন বিবির বাড়িতে রমজান মাসের খাবার হিসেবে চাল, ডাল, তেল, ডিম, দুধ, মসলা, খেজুরসহ পুরো এক মাসের নিত্য প্রয়োজনীয় বাজার পৌঁছে দিয়েছেন রংপুরের সাবেক এই এসপি। এদিকে পুলিশ কর্মকর্তার এই উপহার পেয়ে আবেগে আপ্লুত হন বৃদ্ধা মহিতন।

এ ব্যাপারে বৃদ্ধা মহিতন বিবি বলেন, রমজান মাসে কেমনে চলনু হয় জানো না। আইজ পুলিশ আসি পুরো মাসের খাবার দিয়ে গেইল। মরার আগ পর্যন্ত এই বিপ্লব স্যারের দানের কথা ভুলিম না। আল্লাহ ওমাক (ওনাকে) ভালো থুক (রাখুক)। এদিকে গজঘন্টা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী বলেন, একজন পুলিশ কর্মকর্তা এতটা ভালো মানুষ হতে পারে আমি আগে দেখিনি।সমাজের সকল বিত্তবানদের এধরনের কাজে আরও এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

Leave a Comment