নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে তরুণীকে হেনস্তা, কি ঘটেছিল সেখানে

3 / 100

ঢাকা থেকে নরসিংদীতে বেড়াতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হয়েছেন দুই তরুণ ও এক তরুণী। গত বুধবার (১৮ মে) সকালে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনের ১ নং প্ল্যাটফর্মে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক আলোচনা-বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

স্থানীয়রা জানান, গত বুধবার রেলওয়ে স্টেশনের ১ নং প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ঢাকা মেইল ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন এক তরুণী ও তার দুই বন্ধু। এ সময় স্টেশনে অবস্থানরত মাঝবয়সী এক নারী তাদের দেখে বাজে মন্তব্য করে। ওই তরুণী সেটার জবাব দিলে ওই নারীর সঙ্গে তর্ক হয়। এক পর্যায়ে ওই নারী তরুণীর গায়ে হাত তুলতে গেলে তার দুই বন্ধু প্রতিবাদ করেন। তখন স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন বখাটে তরুণীর দুই বন্ধুর সঙ্গে তর্কে জড়ায় এবং তাদের মারতে যায়। এক পর্যায়ে তারা তিনজন স্টেশন মাস্টারের কক্ষে গিয়ে রক্ষা পান।

স্টেশনে অবস্থানরত একাধিক ব্যক্তির ভাষ্য, অভিযুক্ত মাঝবয়সী ওই নারী মানসিক বিকারগ্রস্ত। তবে মানসিকভাবে আসলেই বিকারগ্রস্ত কি না, এ বিষয়ে সঠিক তথ্য জানাতে পারেনি রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ।

প্রত্যক্ষদর্শী দুই দোকানদার জানান, তখনই ঢাকাগামী চট্টগ্রাম মেইল ট্রেন চলে আসায় ওই তিনজন তাতে উঠে চলে যায়। সব মিলিয়ে পুরো ঘটনা মিনিট দশেকের।

স্টেশন মাস্টার এটিএম মূছা মিয়া জানান ঘটনার সময় তিনি ছিলেন না। পরে গিয়ে শুনেছেন। তিনি বলেন, ‘মেয়েটা ঢাকার। নাম-ঠিকানা জানা যায় নাই। অশ্লীল পোষাক পরে নাকি দুদিন এ স্টেশনে এসেছে। তা এখানের লোকজনের নজরে আসে। বুধবার সকালে কোনো এক স্থানে রাত্রী যাপন করে ঢাকা যাওয়ার পথে এই স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে। তাকে নিয়ে অনেকে বিভিন্ন মন্তব্য করেছে। আমি কোনো সঠিক তথ্য পাইনি। অল্প সময়ে মধ্যে ঘটনাটি ঘটে। তখন কেউ ভিডিও করে ভাইরাল করেছেন।’

নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মো. মুসা জানান, তারা ঢাকাগামী ঢাকা মেইলের যাত্রী ছিলেন। বিষয়টা দুঃখজনক, তবে এটি সমাধান হয়েছে।

নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ( এসআই) ইমায়েদুল জাহেদী জানান, ওই তরুণ-তরুণী নরসিংদীতে ঘুরতে এসেছিলেন। তরুণীর পরনে থাকা পোশাক নিয়ে ওই নারী আপত্তিকর মন্তব্য করেছিলেন। এ থেকে ঘটনার সূত্রপাত বলে স্থানীয়দের কাছ থেকে শুনেছি। পরে বিষয়টি স্টেশন মাস্টারের মধ্যস্থতায় সমাধান হয়েছে। ট্রেন চলে আসায় তাদের নাম ঠিকানা নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Comment