দাওয়াত খাওয়া নিয়ে রাতে ঝগড়া, সকালে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

7 / 100

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে সখিনা আক্তার নিশু (২৪) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।বুধবার (১৮ মে) সকালে উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের রহিম উদ্দিন ব্যাপারী বাড়ি থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।নিহত নিশু কালিকাপুর গ্রামের সোলায়মানের (৩০) স্ত্রী ও বেগমগঞ্জ উপজেলার মীরওয়ারিশপুরের মো.

জামাল উদ্দিনের মেয়ে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী সোলায়মান পলাতক।পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বুধবার দুপুরে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে নিয়ে নিশুর নানাবাড়িতে দাওয়াত খেতে যাওয়ার কথা ছিল। এতে সোলায়মানের বাড়ির ৮-১০ জন যাওয়ার কথা ছিল। তবে মঙ্গলবার রাতে নিশুকে তার নানাবাড়ির লোকজনকে জানাতে

বলা হয় যে, সেখানে ২০-২৫ জন যাবে। এতে নিশু অস্বীকৃতি জানালে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। পরে বুধবার ভোরে নিশুকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় বজরা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, সাড়ে তিন বছর আগে সোলায়মানের সঙ্গে পারিবারিকভাবে নিশুর বিয়ে

হয়। তাদের কোনো সন্তান হয়নি। ভাগনির সুখের কথা চিন্তা করে সোলায়মানকে বিদেশে পাঠিয়েছিলেন নিশুর মামারা।নিহতের মামা শাহজাহান সাজু জাগো নিউজকে বলেন, খবর পেয়ে আমরা ওই বাড়িতে গিয়ে নিশুর মরদেহ দেখতে পাই। আমাদের ধারণা, নিশুকে হত্যা করা হয়েছে। সঠিক তদন্তের ভিত্তিতে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি চাই।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হারুনুর রশিদ জাগো নিউজকে বলেন, মৃত্যুর কারণ অজ্ঞাত। নিহতের বাবার দায়ের করা অভিযোগটি অপমৃত্যু মামলা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মরদেহের ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Comment