কেঁদে কেঁদে বৃদ্ধা বললেন, ‘জীবনের শেষটা এমন হবে ভাবিনি’

 

রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ করার পর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন সাধারণ ইউক্রেনীয়। এ যুদ্ধের কারণে অবর্ণনীয় কষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন তারা।

তাদেরই একজন ৮৬ বছর বয়সী বৃদ্ধা লিডিয়া। তিনি দোনেৎস্কের আভদিভকার বাসিন্দা।

গণমাধ্যম সিএনএনের সাংবাদিক ক্লাসিরা ওয়াডের কাছে ওই বৃদ্ধা জানিয়েছেন, তিনি কখনো ভাবেননি জীবনের শেষটা এমন হবে। 

তিনি জানিয়েছেন, তীব্র আতঙ্ক নিয়ে দিনপাত করছেন তিনি।

বৃদ্ধা লিডিয়া সিএনএনকে বলেন, আমি কখনো ভাবিনি আমার জীবনের শেষটা এমন হবে। আপনি এখানে মরতেও পারবেন না কারণ এখানে কেউ নেই যে আপনার অন্তষ্টিক্রিয়া করবে। 

তিনি আরও বলেন, যখন বিদ্যুৎ থাকে না, অন্ধকার হয়ে যায়। তখন গোলাবর্ষণ শুরু হয়। আপনি ভাবতেও পারবেন না এটি কতটা ভয়ানক অনুভূতি। 

সিএনএনের সাংবাদিক ক্লাসিরা ওয়াডকে ছাড়তে চাচ্ছিলেন না বৃদ্ধা লিডিয়া। তার হাত নিজের গালে ধরে হুইল চেয়ারে বসা ৮৬ বছর বয়সী লিডিয়া বলেন, এমন সত্যিকারের মানুষদের দেখতে ভালো লাগে। খুব সম্ভবত এটি (বর্তমান যুদ্ধ) আরও খারাপ হবে। 

এদিকে দোনেৎস্কে যুদ্ধ চলছে ২০১৪ সাল থেকে। সে বছর রাশিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দোনেৎস্ককে স্বাধীন করার চেষ্টা চালাচ্ছে। 

এই অঞ্চলের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, আট বছর ধরে যুদ্ধ চললেও তারা কখনো এমন ভয়ানক পরিস্থিতি দেখেননি। 

Leave a Comment