কুসিক নির্বাচনে বাগড়া দিয়েছে বৃষ্টি

7 / 100

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) ভোটগ্রহণ চলছে। বুধবার (১৫ জুন) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে) ব্যবহার করে বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। কিন্তু এরইমধ্য বাগড়া দিয়েছে বৃষ্টি। ফলে ছত্রভঙ্গ হচ্ছে ভোটাররা আবার অনেকে লাইনেও দাড়িয়ে থাকে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দানে জন্য। এর আগে নগরপিতা নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিচ্ছিল কুমিল্লা নগরবাসী। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ভোট গ্রহণ ব্যহত হচ্ছে।

সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। এটি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) তৃতীয় ভোট। এর আগে দুটি ভোটই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) অনুষ্ঠিত হয়। এবারও আগের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ভোট। তবে ইভিএম নিয়ে প্রার্থীদের অভিযোগ নেই।

এর আগে দু’বার ভোটে বিএনপি সমর্থিত মনিরুল হক সাক্কু মেয়র নির্বাচন হন। এবার নৌকার একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপি সমর্থিত দুইজন প্রার্থী নির্বাচনের মেয়র পদে লড়াই করায় নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত কিছুটা বাড়তি সুবিধা পাবেন এমন মনে করছেন কুসিকের সাধারণ ভোটাররা। এ ছাড়া অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে কুমিল্লা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থান অনেক বেশি শক্তিশালী অবস্থানে থাকায় দলীয় প্রার্থীর জয়ের ব্যাপারে অনেকটা নিশ্চিত।

কুসিক নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন স্তরের তিন হাজার ৬০৮ জন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বসানো হয়েছে সিটির বিভিন্ন পয়েন্টে ৭৫টি চেকপোস্ট। ভ্রাম্যমাণ মোবাইল টিম থাকবে ১০৫টি, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন করা হবে ১২ প্লাটুন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যটালিয়ন থাকবে ৩০টিম, অর্ধশত নির্বাহী ও ০৯ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট। এর বাইরে সাধারণ ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে থাকবে যথাক্রমে ২২ ও ২৪ জন করে পুলিশ, আনসার, ব্যাটালিয়ন আনসারসহ গ্রম পুলিশের সদস্য। বলা যায়, পুরো সিটি এলাকা নিরাপত্তার চাদরে মোড়া থাকবে। এই প্রথমবারের মতো কেন্দ্রের বাইরে-ভিতরে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। নির্বাচনের নিরাপত্তার প্রসঙ্গে কুমিল্লার পুলিশ সুপার বলেন, ‘আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কেউ অনিয়ম করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

কুমিল্লা সিটিতে এবারের নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীসহ সাধারণ ও সংরক্ষিত মিলিয়ে ১৪৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। কুমিল্লা নির্বাচনে এবার মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর নারী ভোটার ১ লাখ ১৭ হাজার ৯২ জন। এ ছাড়া তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন দুইজন। এবারে ২২ হাজার নতুন ভোটার।

Leave a Comment