ঈদের আগে দোকানে যা তুলেছি সব পু,ড়িয়ে ছাই করে দিল: দোকান মালিক

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের সং,ঘর্ষের শুরু হয়েছে খাবারের দাম নিয়ে কথাকাটাকাটির জেরে-এমন খবর ছড়িয়ে পড়লেও প্রকৃত ঘটনা ভিন্ন।

জানা গেছে, দফায় দফায় এ সং,ঘর্ষের সূত্রপাত ব্যবসায়ীদের অন্তর্দ্বন্দ্বের কারণেই।

এদিকে, দোকানের ভেতর আ,গুনে পুড়ে যাওয়া কাপড়ের ছাইয়ের পাশে বাকরুদ্ধ দাঁড়িয়ে ছিলেন। দুচোখ বেয়ে পানি গড়িয়ে পড়ছে। কী হয়ে গেল বুঝে উঠতে পারছেন না। ‘সামনে ঈদ, তার আগে দোকানে ২০ লাখ টাকার নতুন কাপড় তুলেছি বিক্রির জন্য। এখন সব পু,ড়িয়ে ছাই করে দিল’, অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন, রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকার নূরজাহান মার্কেটের দোকান মালিক সেন্টু মিয়া।

তিনি শুধু তার দোকানের ক্ষ,তির কথা জানালেন। আরও ৩টি দোকানে একই রকম ক্ষ,তি হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আজ দুপুর ১টার দিকে একদল দু,র্বৃত্ত দোকানগুলোতে আ,গুন ধরিয়ে দিলে ৪টি দোকান পু,ড়ে ছাঁই হয়ে যায়। আরও কয়েকটি দোকানেও কিছুটা আ,গুন ছড়িয়ে পড়ে। ঢাকা কলেজ এবং নিউ মার্কেট এলাকার ব্যবসায়ীদের মধ্যে দফায় দফায় সং,ঘর্ষের সময় এ ঘটনা ঘট।
শিক্ষার্থী-ব্যবসায়ী সং,ঘর্ষ: পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষো,ভ

দোকানি মালিকদের অভিযোগ, ঢাকা কলেজের উত্তেজিত শিক্ষার্থীরাই তাদের দোকানে আ,গুন ধরিয়ে দেয়। পুলিশের সক্রিয় ভূমিকা পালন করলে এ পরিস্থিতি এড়াতে পারতো বলে মন্তব্য করেছেন এ ঘটনার অনেক প্রত্যক্ষদর্শী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পাশে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগে থেকেই নিউ মার্কেট এলাকায় ছিল। তারা দ্রু,ত এসে আ,গুন নিভিয়ে ফেলে। আ,গুন যদি ব্যাপক আকারে ছড়াতো তাহলে পুরো মার্কেট পু,ড়ে যেত। আ,গুন

যখন ধোঁয়ার আকারে শুরু হয়, তখন নূরজাহান মার্কেটের দোকানদার মোহাম্মদ আলী কাঁদতে কাঁদতে দৌড়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের কাছে ছুটে যান। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের পায়ে পড়ে বলেন, ‘স্যার আমাদের সব শেষে হয়ে গেল। আমাদের রক্ষা করেন।’

Leave a Comment